Advance Knowledge

What is Anonymous

 #Anonymous 

#অ্যানোনিমাস_কি? 

#অ্যানোনিমাস_কেন_হবেন?

অ্যানোনিমাস হচ্ছে নিজের প্রকৃত এড্রেস লুকিয়ে ঘুরে বেড়ানো, তবে এটা ডিজিটাল পদ্ধতিতে। বুঝেন নাই? আচ্ছা আমরা এখানে কিসের ওপর ভিত্তি করে কাজ করছি? ইন্টারনেট, তাই তো! এখন ইন্টারনেটে কাউকে কি দিয়ে খুজে পাওয়া যায়? তার মোবাইল নাম্বার বা তার নাম দিয়ে? অব্যশ্যই না। আপনাকে পেতে হলে আপনার আইপি বা ম্যাক এড্রেস দিয়েই আপনাকে খুজে নিবে।তাহলে আপনাকে কি লুকোতে হবে? আপনার আইপি ও ম্যাক এড্রেস লু্কতে হবে। এবার প্রশ্ন হচ্ছে আপনি অ্যানোনিমাস কেন হবেন?

ধরুন আপনি একটা ওয়েব সাইট হ্যাক করেছেন, সেটা বাংলাদেশ পুলিশের। এবার আপনি হ্যাক করার পরে আপনার আইপি টা পুলিশ পেয়েছে, এবার তারা এটা খোজা শুরু করেছে।এবার পুলিশ সেই আইপি টার আইএসপি বা ইন্টারনেট প্রোভাইডারকে খুঁজবে। এরপরে পুলিশ আইএসপি থেকে সেই আইপি টার সকল তথ্য নিবে এবং আপনি গ্রেফতার। এবার আপনি ভাবতে পারেন ভাই আমি তো ডাইনামিক আইপি ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু ভাই আপনার তো এটা বুঝতে হবে আপনার যে ইন্টারনেট প্রোভাইডার তাদের কাছে তো আপনার সকল তথ্যই আছে। এবার ভাবতে পারেন ভাই আমি যে আইপি ব্যবহার করছি এই আইপি তো আমি বাদেও অনেকেই ব্যবহার করছে (ডাইনামিক আইপির ক্ষেত্রে একটা আইপিকে একাধিক ইউজারের কাছে রাউট করে ব্যবহার করতে দেয়া হয়, তাই এক আইপি অনেক জন ব্যবহার করে থাকে)। কিন্তু ভাই আপনাকে এটাও ভাবা লাগবে আপনি বাদেও অনেকে এই আইপি ব্যবহার করছে কিন্তু সেটা ব্যবহার করতে দিচ্ছে কে? আপনার আইএসপি তাই আপনার আই এসপির কাছে সকল তথ্যই থাকে। তাই পুলিশ আপনার আইএসপির কাছে থেকে আপনার এড্রেস নিয়ে চলে আপনার দরজায়। এবার আপনি জেলে একটা সেই ঘুম দিচ্ছেন, সাথে এথিক্যাল হ্যাকার হওয়ার সপ্ন শেষ এবার হয়ে গেলেন আপনি ব্লাক হ্যাট। 

কিভাবে ইন্টারনেটে নিজেকে অ্যানোনিমাস রাখবেন?

#ভিপিএন_ব্যবহার

ভিপিএন এই নাম টার সাথে হয়তো সবাই পরিচিত, অনেকে হয়তো জানেন এটা দিয়ে নিজের আইপি পরির্বতন করা যায়। বিশেষ করে এই বিষয় বাংলাদেশিরা বেশি বুঝেছে যখন ফেসবুক বাংলাদেশ থেকে ব্লক করে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু যেই ভাবেই হোক সেটা বড় কথা নয়, শেখা টাই বড় কথা। হ্যা ভিপিএন ব্যবহার করে আপনি অ্যানোনিমাস হতে পারেন। কারণ এটা শুধু আপনার আইপি টা চেঞ্জ করে দেয় সেটাই না সাথেই আপনার ডাটা গুলো সব এনক্রিপ্ট করে সার্ভারে পাঠিয়ে দেয়। তাই এটা বলতেই পরেন প্রক্সি সাইটের থেকে এটা অনেক ভাল ও নিরাপদ। আসলে ভিপিএন টা অনেকটা একটা ট্যানেল এর মত করে কাজ করে। কিন্তু আপনি যদি মনে করে থাকেন আপনি ভিপিএন ব্যবহার করছেন সেই কারণেই আপনি নিরাপদ তাহলে আপনি ভুল করবেন। আসলে আপনি যদি কোন অপকর্ম করে থাকেন, আর সেটার জন্য যদি পুলিশ আপনাকে খোজে তাহলে তো আপনার আইপি টা দেখে আপনাকে খুজবে। এটা তো আমরা সবাই জানি, আপনি তো ভাবছেন আপনাকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব না, কারণ আপনি ভিপিএন ব্যবহার করছেন।

আপনার লোকেশন ও আইপি সব টাই তো ভুল তাহলে আমাকে খুজে বের করবে কিভাবে! কিন্তু ভাবুন , পুলিশ সেই আইপি দেখে আপনার ভিপিএন কোম্পানির কাছে রিপোর্ট করেছে ও তাদের লগ দেখে সেই আইপি টা কোন ইউজার ব্যবহার করেছে সেটা নিয়ে নিল ও আপনার আসল আইপি খুজে পেল। এবার তো আপনি ধরা খেয়ে গেলেন। আপনি হয়তো ভাবতে পারেন ভিপিএন কোম্পানি আপনার আসল আইপি কিভাবে খুজে পাবে? ভাই বুঝেন একটু, ভিপিএন কিভাবে কাজ করে? ভিপিএন একটা ট্যানেল শুধু, ধরুন একটা রাস্তা আছে তার ভেতর দিয়ে আরেকটা রাস্তা বানানো আছে। যেটা পুরোটা ঢাকা কেও দেখতে পাবেনা। আর এই ঢাকা রাস্তা টাই হচ্ছে ভিপিএন।

এবার এই রাস্তার মালিক তো বুঝতেই পারবে আপনি কোন রাস্তা থেকে এই ট্যানেলে ঢুকেছেন। ঠিক একই ভাবে ভিপিএন কাজ করে ও তাদের কাছে তথ্য থাকে যেটা থেকে তারা বলতে পারে আপনার আসল আইপি কি। তাহলে এর জন্য করনিয় কি? আসলে এই কাজ গুলো করে থাকে ফ্রি ভিপিএন সার্ভিস প্রোভাইডার কোম্পানি গুলো। এমন অনেক কোম্পানি আছে যারা ইউজারের কোন তথ্য তাদের কাছে জমা রাখে না। তাদের কাছে যদি এই তথ্য জমা না থাকে এর অর্থ আপনার তথ্য তাদের কাছে নেই। সুতরাং আপনি এই সব ভিপিএন গুলো ব্যবহার করতে পারেন। অনেক পেইড ভিপিএন আছে তারা কোন ইউজারের তথ্য বা লগ তাদের কাছে রাখে না। যেমন, #ট্যানেল_বেয়ার, #নর্ড_ভিপিএন (ফ্রী ভিপিএন ব্যাবহার থেকে দূরে থাকুন) ইত্যাদি , গুগলে এমন ভিপিএন সার্চ করে সেই ভিপিএন গুলো ব্যবহার করতে পারেন।

Related Articles

Leave a Reply